Random Posts

বাড়বকুণ্ড অগ্নিকুণ্ড | কালভৈরবী মন্দির | সীতাকুণ্ড গরম পানির ঝর্ণা ভ্রমণ গাইড | Barabkunda Trail Travel Guide | Mirsharai,Sitakunda and Chittagong

বাড়বকুণ্ড অগ্নিকুণ্ড এবং সীতাকুণ্ড গরম পানির ঝর্ণা(Barabkunda Trail):
বাড়বকুন্ড ট্রেইলে রয়েছে বাংলাদেশের ১ মাত্র গরম পানির ঝর্ণা এবং দেশের ১ মাত্র জলন্ত অগ্নিকুন্ডলি। বাড়বকুন্ড তুলনামূলক অপরিচিত একটি ট্রেইল। বাংলাদেশের একমাত্র গরম পানির ঝর্ণা এই ট্রেইলেই দেখতে পাবেন। এই ট্রেইল অপরিচিত হওয়ার কারনে অনেকেই এখানে যায় না ,অথচ এই ট্রেইল ঘুড়ার জন্য বেশ ভাল একটি প্লেস। বাড়বকুন্ডের সবচেয়ে আকর্ষনীয় পার্ট হচ্ছে অগ্নিকুণ্ড মন্দির । পানির উপর আগুন জ্বলছে যা দেখতে খুব ইন্টারেস্টিং লাগবে । অনেক অনেক গল্প প্রচলিত আছে এই মন্দির নিয়ে। এছাড়াও এখানে শতশত বর্ষ পুরানো বেশ কিছু মন্দির আছে যার মধ্য কালভৈরবী মন্দির অন্যতম। অপেক্ষাকৃত সহজ এবং সুন্দর এই ট্রেইল পুরো কাভার করে আবার ফিরে আসতে সময় লাগবে ৩-৪ ঘন্টা। বাংলাদেশের একমাত্র গরম পানির ঝর্ণা এই ট্রেইলেই দেখতে পাবেন। এই ট্রেইলে ৩ টি ঝর্নাও আছে। মন্দিরের গেইট থেকে থেকে নেমে হাতের বাম দিকে একটি খুম পাবেন,ঠিক তার পাশ ঘেষেই যে ঝিরিপথ আছে তা ধরে ২০-২৫ মিনিট হাটলেই প্রথম ঝর্না । ঝিরিপথ ধরে এগোলেই বাকি ঝর্না গুলো পেয়ে যাবেন। বিশেষ করে শেষ ঝর্নাটার কথা বলতেই হয়, সেটা পর্যন্ত যেতে ধৈর্য থাকার অতি প্রয়োজন। সেটি দেখার পর আপনার দেহের সারাদিনের ক্লান্তি কেটে যাবে আশা করি। কিভাবে যাবেন ? যেকোনো জায়গা থেকে চট্টগ্রামের বাড়বকুন্ড বাজার। সীতাকুণ্ডে পরেই বাড়বকুন্ড বাজার। ঢাকা থেকে বাসে আসলে একদম বাড়বকুন্ড বাজারেই নামতে পারবেন। ট্রেনে আসলে ভেঙ্গে ভেঙ্গে আসতে হবে বাড়বকুন্ড বাজারে। বাড়বকুন্ড বাজার থেকে চট্টগ্রামের দিকে ঘুরলে, হাতের বাম দিকে একটা পাকা রাস্তা চলে গেছে। এই রাস্তা ধরে ৪০/৫০মিনিটের মতন হাঁটলেই কালভৈরবী মন্দির। বাজারের কাউকে জিজ্ঞাসা করলে দেখায় দিবে। যেতে দুই রকমের পথ পাবেন। একটা পাকা রাস্তা আর পাকা রাস্তা শেষে মাটির রাস্তা৷ অটো রিক্সাতে পাকা রাস্তাটা যেতে পারবেন। কিন্তু মাটির রাস্তাটা হেঁটে যেতে হবে । ঢাকা উত্তরা থেকে ফেনী বাস ভাড়া ৩০০ টাকা, এবং সায়েদাবাদ থেকে ফেনী বাস ভাড়া ২৭০ টাকা এই রুটে স্টার লাইন এবং এনা বাস ভালো সার্ভিস দেয় । আর ফেনী থেকে বাড়বকুন্ড বাস স্ট্যান্ড লোকাল বাসের ভাড়া ৫০ টাকা । সীতাকুণ্ড বাস স্ট্যান্ডের ঠিক পরেই বাড়বকুণ্ড বাস স্ট্যান্ডের অবস্তান । আপনারা চাইলে সরাসরি চট্টগ্রামের বাসেও বাড়বকুণ্ড বাস স্ট্যান্ড যেতে পারেন এই ক্ষেত্রে ভাড়া পড়বে ৪৮০ টাকা । আর চট্টগ্রাম থেকে বাড়বকুণ্ড বাস স্ট্যান্ড বাস ভাড়া ৫০ টাকা । সংক্ষেপে খরচ সমুহঃ ঢাকা উত্তরা থেকে ফেনী বাস ভাড়া ৩০০ টাকা ফেনী থেকে বাড়বকুন্ড বাস স্ট্যান্ড লোকাল বাসের ভাড়া ৫০ টাকা । বাড়বকুণ্ড বাস স্ট্যান্ড হতে অগ্নিকুণ্ড যেতে সিনজি ভাড়া ২০ টাকা । সকালের নাস্তা = ৪০ টাকা । বাড়বকুণ্ড ট্রেইল ঘুরে বাস স্ট্যান্ডে ফিরতে সিনজি ভাড়া = ২০ টাকা । দুপুরের খাবার = ১৫০ টাকা । বাড়বকুন্ড বাস স্ট্যান্ড থেকে ফেনী লোকাল বাসের ভাড়া = ৫০ টাকা । রাতের খাবার = ১৫০ টাকা । ফেনী থেকে উত্তরা বাস ভাড়া =৩০০ টাকা । মোট খরচ = ১০৮০ টাকা ।

১ দিনে বাড়বকুণ্ড অগ্নিকুণ্ড এবং কালভৈরবী মন্দির এবং সীতাকুণ্ড গরম পানির ঝর্ণা ঘুরতে চাইলে আমাদের বানানো এই ভিডিওটি দেখতে পারেন

Post a Comment

0 Comments