Random Posts

ঝরঝরি ট্রেইল (পন্থিছিলা, সীতাকুন্ড) , ঝরঝরি ঝর্ণা এবং মূর্তি ঝর্ণা - ভ্রমণ গাইড। Jhorjhori Waterfall | Murti Jhorna | Places to visit in sitakunda mirsharai | Chittagong

ঝরঝরি ট্রেইল (পন্থিছিলা, সীতাকুন্ড),ঝরঝরি ঝর্ণা এবং মূর্তি ঝর্ণা - ভ্রমণ গাইড

এই ট্রেইলে যা দেখবেনঃ
- ঝরঝরি ট্রেইল
- মূর্তি ঝর্ণা

যেহেতু ভ্রমণটি ১ দিনের আমাদের প্ল্যান ছিল রাতের বাসে সীতাকুণ্ড যাবো পরেরদিন সীতাকুণ্ড ঘুরে আবার রাতের বাস ধরে ঢাকায় ফিরবো । ঢাকা থেকে সরাসরি চট্টগ্রামের বাস ধরে সীতাকুণ্ড যাওয়া যায় কিন্তু সমস্যা হলো ঢাকা থেকে সরাসরি চট্টগ্রামের বাস ভাড়া ৪৮০ টাকা । কিন্তু আমাদের ট্যুরটি ছিলো বাজেট ট্যুর তাই খরচ কমাতে চাচ্ছিলাম । খরচ কমাতে অবশ্য মেইল ট্রেনে সীতাকুণ্ড যাওয়া যায় কিন্তু মেইল ট্রেনের অভিজ্ঞতা খুব খারাপ। কারন মেইল ট্রেনে সারা রাস্তায় দাঁড়িয়ে যেতে হয় । তাই যদিও মাত্র ১২০ টাকা দিয়ে মেইল ট্রেনে সীতাকুণ্ড যাওয়া যায় কষ্টের কথা চিন্তা করে মেইল ট্রেনে যাওয়ার সাহস হল না । খরচ কমানোর জন্য নতুন প্ল্যান করলাম আমারা প্রথমে ঢাকা থেকে ফেনী যাবো । কারন ঢাকা উত্তরা থেকে ফেনীর বাস ভাড়া মাত্র ৩০০ টাকা আর সায়েদাবাদ থেকে ২৭০ টাকা । আর ফেনী থেকে পন্থিছিলা বাজারের বাস ভাড়া ৫০ টাকা । সুতারাং আসা যাওয়া বাবধ আমাদের সেভ হবে প্রায় ৩০০ টাকা ।

আমরা ঢাকা থেকে ফেনীর বাসে উঠে গেলাম এবং মোটামুটি সকাল ৫ টায় আমরা ফেনীতে নেমে গেলাম । এবং ফেনীতে নাস্তা সেরে সকাল ৬টায় চট্টগ্রামের বাসে উঠে গেলাম । ফেনী থেকে পন্থিছিলা যেতে সময় লেগে ছিলো ১ ঘন্টা । পন্থিছিলা বাজারে এসে সিএনজি ঠিক করলাম রেল লাইনে নামিয়ে দিবে বলে । ভাড়া নিয়েছিলো জনপ্রতি ১০ টাকা করে । যদিও পন্থিছিলা বাজার হতে রেল লাইনে হেঁটে যেতে ১০-১৫ মিনিট সময় লাগে আর দূরত্ব মাত্র ১ কিলোমিটার । যেহেতু আমরা সারা রাত জার্নি করে ক্লান্ত তাই হাঁটার প্যারাটা নিলাম না । আমরা রেললাইনে এসেই রেল লাইন ধরে হাতের বাম পাশে হাঁটা শুরু করলাম । রেল লাইন ধরে ৫ মিনিট হেটেই হাতের বামে ১ টা মাটির রাস্তা পেয়ে গেলাম । যদিও আমাদের তখনও গাইড ঠিক করা হয়নি । রেইল গেটে গাইড ঠিক করতে চেয়েছিলাম কিন্তু তারা ১০০০ টাকা চাইল আমরা বললাম ৫০০ দিবো কিন্তু রাজি হলো না । তাই মনে মনে ঠিক করলাম গাইড না নিয়েই চলে যাবো ।


মাটির রাস্তা ধরে কিছু পথ হাটতেই ইলিয়াস নামের ১ টি ছেলেকে পেয়ে গেলাম যে কিনা ৩০০ টাকা এবং ১ বেলা খাবারের বিনিময়ে আমাদের গাইড হিসাবে কাজ করতে রাজি হলো । গাইডের কোন মোবাইল নেই তার বাসার মোবাইল নাম্বার নিয়েছি আপনারা কেউ তাকে নিয়ে ট্রেইলে যেতে চাইলে এই নাম্বারে যোগাযোগ করতে পারেন - 01891677689 আমরা প্রায় ৫-৬ ঘন্টা এই ট্রেইলে ছিলাম কিন্তু বনের ভিতর প্রবেশ করার পর কোন মানুষের দেখা পাইনি । আর রাস্তা গুলো এতই অগোছানো যে আমাদের গাইড ২ বার ভুল রাস্তায় প্রবেশ করেছিলো । কিন্তু তাৎখনাথ বুজতে পরেছিল যে ভুল রাস্তায় যাচ্ছি তাই আবার সে সঠিক রাস্তা খুজে নিয়েছিলো এই জন্যই আপনাদের বলেছি গাইড ছাড়া আসবেন না । যদি আমরা গাইড ছাড়া আসতাম তবে হয়তো জানতেই পারতাম না কোনটা সঠিক রাস্তা আর কোনটা ভুল রাস্তা তাই আমাদের সাজেশন থাকবে অবশ্যই গাইড নিয়ে আসার ।

আমাদের গাইড থেকে জানতে পারলাম এই ট্রেইলে বানর চিতাবাঘ , মেছো বাঘ , হরিন , বনমোরগ প্রায়ই এই সব বন্য প্রাণী দেখা যায় কাজেই বুঝতেই পারছেন যায়গাটা এখনো ন্যচেরাল রয়েছে ।

এই ট্রেইলে ছোট বড় মোট ৬টি ঝর্ণা রয়েছে। পন্থিছিলা থেকে সব গুলো ঝর্ণা দেখে আসতে প্রায় ৫-৬ ঘণ্টার মত লাগবে । ঝরঝরি ঝর্ণার সবচেয়ে দেখার মত জিনিশ হচ্ছে বিচিত্র সব ক্যাসকেড এবং নিঝুম প্রকৃতি । আর সীতাকুণ্ডের অন্যান্য ট্রেইলের মত পরিচিত না হবার কারনে মানুষ জনের আনাগোনা খুব একটা নেই তাই নিরিবিলি খুব সুন্দর সময় কাটানোর জন্য আকর্ষণীয় একটি যায়গা হচ্ছে ঝরঝরি ট্রেইল । এই ট্রেইলের প্রত্যেকটা ধাপে রয়েছে অপরূপ সৌন্দর্যের হাতছানি, ঝরঝরি ঝর্ণার পাশ দিয়ে পাহাড় বেয়ে উপড়ে উঠে গেলে ধাপে ধাপে খাজকাটা বেশ কয়েকটি ক্যাসকেড ও ঝর্ণা আপনাকে আরো মুগ্ধ করবে। ঝরঝরি ট্রেইলে বলতে সবাই ক্যাসকেড পর্যন্ত জায়গাটাকে বুজে, কিন্তু এর আসল মজাটা হচ্ছে মূর্তি ঝর্ণা শেষ ক্যাসকেড থেকে ১ ঘন্টার মত ট্রেকিং করলে মানুষের মুখের আকৃতির একটি পাথর দেখতে পাবেন, স্থানীয়রা একে মূর্তি ঝর্ণা বলে ।

যেভাবে যাবেন:


ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী যে কোন বাসে পন্থিছিলা বাজারে  আসতে পারবেন ভাড়া নিবে ৪৮০ টাকা । কম ভাড়ায় যেতে চাইলে ঢাকা থেকে ফেনির বাসে উঠতে পারেন ,  ঢাকা থেকে ফেনি পর্যন্ত বাস ভাড়া ২৭০ টাকা ।  আর ফেনি থেকে চট্টগ্রাম গামী লোকাল বাসে পন্থিছিলা বাজারে  যেতে  বাস ভাড়া নিবে ৫০-৬০ টাকা ।  


ট্রেনে যেতে চাইলে সরাসরি ঢাকা থেকে মেইল ট্রেনে সীতাকুণ্ডে যেতে পারেন ,  ভাড়া নিবে ১২০ টাকা তার পর সীতাকুণ্ড বাস স্ট্যান্ড হতে লেগুনা/ সিএনজি যোগে পন্থিছিলা বাজারে  জেতে পারবেন মাত্র  ৩০  ৫০  টাকা ভাড়ায় । যেহেতু মেইল ট্রেনে সিট পাওয়া যায় না তাই আরামের কথা চিন্তা করলে রাতের তূরনা নিশিতা ট্রেনে করে ফেনি নামতে পারেন ।  ঢাকা টু ফেনি ভাড়া নিবে ২৬৫-৬০৪ টাকা  । ফেনি রেলওয়ে স্টেসন থেকে ৫০ টাকা রিক্সা ভাড়া দিয়ে যাবেন মহিপাল বাস স্ট্যান্ডে , আর মহিপাল থেকে পন্থিছিলা বাজারে  যেতে বাস ভাড়া ৫০-৬০ টাকা নিবে । 


যদি আপনি চট্টগ্রাম শহর থেকে আসেন, চট্টগ্রাম শহরের অলংকার মোড় থেকে ফেনি গামী বাসে সীতাকুণ্ড মিরসরাই রেঞ্জে আসতে পারবেন । বাস স্টেসন ভেদে ভাড়া নিবে জন প্রতি ৫০-৮০ টাকা করে ।  


ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম এর গাড়িতে করে মিরসরাই পার হয়ে সীতাকুণ্ডের এক কিলোমিটার আগে পন্থিছিলা বাজারে নামতে হবে । বাজার থেকে পূর্ব দিকে কিছুদূর গেলে প্রথমে রেল লাইন পড়বে, রেল লাইন ধরে ৫ মিনিটের মত বাম দিকে গেলে হাতের ডানের প্রথম মাটির রাস্তা ধরে গেলে ঝিরি পড়বে, এখান থেকে ঝিরি ও একটি পাহাড় পার হলে ঝরঝরি ঝিরি পাবেন, ঝিরি ধরে ০১:৩০—০২:০০ ঘণ্টার মত হাঁটলেই ঝিরির মুখে পাবেন ঝরঝরি ঝর্না। পন্থিছিলা বাজার থেকে ঝরঝরি পর্যন্ত হেঁটে আসতে ২ ঘন্টার মত লাগতে পারে ।






Vlog Tag:ঝরঝরি ট্রেইল,Jorjori Trail,ঝরঝরি ঝর্ণা,Jorjori Waterfalls,সীতাকুণ্ড,চট্টগ্রাম,komoldaha waterfall,jhorjhori waterfall,sitakunda,waterfalls of Bangladesh,places to visit in Chittagong,বাংলাদেশের ঝর্ণাধারা,khoiyachora waterfall,places to visit in sitakunda mirsharai,upper stream of khoiyachora,খৈয়াছড়া ঝর্ণা,খৈয়াছড়া ঝর্ণায় যাওয়ার উপায়,সীতাকুণ্ড ও মিরসরাই,মিরসরাই ঝর্ণা,waterfall,খোইয়া ছরা পাহাড়,steps of khoiyachora,mirsharai


Post a Comment

0 Comments